logo

সম্পাদকীয়

শিল্প ও শিল্পী ত্রৈমাসিকটি দ্বিতীয় বর্ষে পদার্পণ করল। আমরা আনন্দিত, এই এক বছরের পথযাত্রায় পাঠকের আনুকূল্য অর্জন করতে সমর্থ হয়েছি। একটি পত্রিকার জন্য এক বছর খুব বেশি সময় নয়। তবু আমরা চেষ্টা করেছি চিত্রকলা-সংক্রান্ত এই ত্রৈমাসিকটির একটি চরিত্র নির্মাণ করতে। চারটি সংখ্যার মধ্য দিয়ে এই চরিত্র একটি আদল পেয়েছে বটে কিন্তু আমরা কাক্সিক্ষত লক্ষ্য এখনো অর্জন করতে পারিনি।

এই সংখ্যায় লোকশিল্পের দুটি বিশেষ দিক নিয়ে আলোচনা করেছেন দুই বিশিষ্ট লোকশিল্প-বিশেষজ্ঞ। লোকশিল্পের দুটি বিশেষ দিক প্রাধান্য পেয়েছে এ দুটি প্রবন্ধে। একটি প্রবন্ধ বিস্মৃতপ্রায় আধুনিক এক ভাস্কর নভেরা আহমেদকে নিয়ে। নভেরা আহমেদ ভাস্কর্যে প্রভাবসঞ্চারী কাজ করা সত্ত্বেও তাঁকে নিয়ে খুব একটা আলোচনা হয় না। এই প্রবন্ধে নভেরার সৃজন ও ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে আলোকপাত করা হয়েছে এবং তিনি যে এ-দেশের ভাস্কর্যে কতভাবে প্রাণ সঞ্চার করেছেন তা বিশ্লেষণ করেছেন লেখক।

বাংলাদেশের চিত্রকলা আন্দোলনের পথিকৃৎ শিল্পী সফিউদ্দীন আহমেদ পরলোকগমন করেছেন ২০ মে ২০১২।

তাঁর মৃত্যুতে এ-দেশের চিত্রকলা আন্দোলনের প্রভূত ক্ষতি হলো। ৭০ বছরের সাধনায় তিনি এ-দেশের চিত্রকলা-আন্দোলনে এক বিশেষ মাত্রা সঞ্চার করেছিলেন। তাঁর ছাত্র ও সহকর্মী শ্রদ্ধাজ্ঞাপক এক নিবন্ধে তাঁকে নিয়ে আলোচনা করেছেন, বিশ্লেষণ করা হয়েছে তাঁর সৃজন-উৎকর্ষের নানা দিক।

বিগত শতাব্দীর আলোড়ন-সৃষ্টিকারী দুই শিল্প-ব্যক্তিত্ব পাবলো পিকাসো ও অঁরি মাতিসকে নিয়ে একটি প্রবন্ধে আলোচনা করা হয়েছে। সঙ্গে এসেছে গার্ট্রুড স্টাইনের প্রসঙ্গ। তাঁদের সখ্য, আড্ডা বন্ধুতের চড়াই উৎরাই ও সৃজনের নানা দিক উঠে এসেছে এ-প্রবন্ধে।

চলচ্চিত্র বিভাগে এ-দেশের চলচ্চিত্র-জগতের এক সৃষ্টিশীল ব্যক্তিত্ব জহির রায়হানকে নিয়ে একটি প্রবন্ধ প্রকাশিত হলো। চলচ্চিত্র-নির্মাণে এই মানুষটির প্রতিভার যে-বিচ্ছুরণ হয়েছিল তা এখনো অম্লান, তিনিই হয়ে আছেন এ-দেশের চলচ্চিত্রে সৃষ্টিশীলতার ক্ষেত্রে প্রেরণাদায়ক এক ব্যক্তি।

কমল দাশগুপ্তের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে একটি বিশেষ প্রবন্ধ প্রকাশিত হলো এই সংখ্যায়। তিনি অসংখ্য গানে সুরারোপ করেছেন এবং নিজেও ছিলেন এক অনন্য কণ্ঠের অধিকারী। ‘সুরের কমল’ প্রবন্ধটিতে তাঁকে নিয়ে বিস্তৃত আলোচনা করা হয়েছে।

কলকাতা ও ঢাকায় অনুষ্ঠিত তিনটি প্রদর্শনীর সমীক্ষা পত্রস্থ হলো।

এছাড়া রইলো নিয়মিত বিভাগ।

Leave a Reply