logo

সম্পাদকীয়

শিল্প ও শিল্পী তৃতীয় বর্ষে পদার্পণ করল। এই পথযাত্রায় ত্রৈমাসিকটি বাংলা ভাষায় চিত্রকলা বিষয়ক একটি অন্যতম শ্রেষ্ঠ পত্রিকা হয়ে উঠছে। জন্মলগ্নে আমাদের দ্বিধা ও সংশয় ছিল, বাংলা ভাষায় চিত্রকলা বিষয়কে কেন্দ্র করে একটি রুচিস্নিগ্ধ পত্রিকা আদৌ টিকে থাকবে কি না এবং মানসম্মত লেখা সংগ্রহ করতে পারব কি না। এক্ষেত্রে লেখক, পাঠক ও শিল্পানুরাগীরা যে উদার সহায়তা করেছেন, সেজন্য আমাদের নিয়মিত প্রকাশনা অব্যাহত রাখা সম্ভব হয়েছে।
এ-সংখ্যাটিকে আমরা বিষয়বৈচিত্র্যে সমৃদ্ধ করার জন্য যত্নবান ছিলাম।
খ্যাতনামা চিত্রশিল্পী মার্ক শাগাল (১৮৮৭-১৯৮৫) কতভাবেই না চিত্রকলা ভুবনকে সমৃদ্ধ করেছেন। জন্মসূত্রে রুশ এই চিত্রী পরিণত বয়সে দেশত্যাগ করে প্যারিসে বসবাস করেন। কিন্তু জন্মভূমির স্মৃতি, তাঁর গ্রাম এই চিত্রীর সৃজনে বারংবার ফিরে আসে। শৈশবের নানা অনুষঙ্গ তাঁর চিত্র সৃজনের বিষয় হয়ে ওঠে। তাঁকে নিয়ে একটি রচনায় শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেছেন সাগর চৌধুরী।
বাংলাদেশের আধুনিক ভাস্কর্যচর্চায় নভেরা আহমেদ নবীন মাত্রা সঞ্চার করেছিলেন। তাঁর সৃষ্টির উদ্দামতায় স্পষ্ট হয়ে উঠেছিল আধুনিকতার আততি। তিনি তাঁর সৃষ্টিতে কাব্যিক ছন্দে জীবনের বহমানতাকে স্পর্শ করেছিলেন। লোকচক্ষুর আড়ালে থাকা এই ভাস্করের সৃষ্টি এবং তাঁর ভুবনের শৈলী ও বৈশিষ্ট্য নিয়ে লিখেছেন রেজাউল করিম সুমন।
সম্প্রতি ভারতবর্ষের খ্যাতনামা ভাস্কর রাধাকৃষ্ণণের একক ভাস্কর্য প্রদর্শনী হলো বেঙ্গল আর্ট লাউঞ্জে। সমকালীন ভাস্কর্যচর্চায় এই মানুষটি কতভাবে যে সংবেদনশীল অনুভূতিময় এক জগৎ সৃষ্টি করেছেন তা এই প্রদর্শনীতে প্রতিভাত হলো। ভাস্কর রামকিঙ্কর বেইজের ছাত্র ও শান্তিনিকেতন আবহে তাঁর সৃষ্টি কত দ্যুতিময় প্রদর্শনীতে তা পরিস্ফুট হয়ে উঠেছিল। গতানুগতিকতামুক্ত ভাস্কর্যের শিল্পগুণে এই অনন্য মানুষটির সৃষ্টিগুচ্ছ দেখবার অভিজ্ঞতা নিয়ে লিখেছেন রবিউল হুসাইন।
ঢাকায় বিস্মৃতপ্রায় ইয়োরোপীয়দের সমাধিভূমি নিয়ে একটি নিবন্ধ প্রকাশিত হলো। গবেষণার চেতনা ও নিমগ্ন আগ্রহ নিয়ে এই প্রবন্ধটি লিখেছেন শামীম আমিনুর রহমান।
এছাড়া এদেশের চিত্রকলা আন্দোলনের পথিকৃৎ শিল্পী আমিনুল ইসলাম, রফিকুন নবীকে নিয়ে দুটি প্রবন্ধে তাঁদের শিল্পিত অভিযাত্রা তুলে ধরা হলো।
চলচ্চিত্র বিভাগে চলচ্চিত্র-স্রষ্টা ইংমার বার্গম্যানকে নিয়ে আলোচনা করা হলো। সঙ্গে পত্রস্থ হলো চলচ্চিত্র বিষয়ক আরো দুটি প্রবন্ধ। নিয়মিত বিভাগে নাটক, বই ও নিলামের খবর রইল।

Leave a Reply

*